Breaking News
Home / পড়াশোনা / রেওয়ামিল তৈরি সংক্রান্ত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর | হিসাববিজ্ঞান, নবম-দশম শ্রেণি ।

রেওয়ামিল তৈরি সংক্রান্ত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর | হিসাববিজ্ঞান, নবম-দশম শ্রেণি ।

সুপ্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা,  স্টাডিইনবাংলা.কম  -এ স্বাগত জানাচ্ছি ।  বিগত   পোস্ট -এ নবম-দশম শ্রেণির হিসাববিজ্ঞান বিষয়ের  রেওয়ামিলের ধারণা প্রদান পূর্বক রেওয়ামিল তৈরি সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছিল, এই পর্বে শিক্ষার্থীদের রেওয়ামিল তৈরি সংক্রান্ত কিছু  প্রশ্ন ও -এর  উত্তর প্রদান করা হল ।

শিক্ষার্থীদের জিজ্ঞাসিত রেওয়ামিল তৈরি সংক্রান্ত কিছু প্রশ্ন ও উত্তর ।

♣ সমাপনী মজুদ পণ্য রেওয়ামিলের কোন দিকে বসে ?

উত্তর : সমাপনী মজুদ পণ্য সাধারণত রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হয় না ।  কারণ প্রথমত সমাপনী মজুদ পণ্য খতিয়ানের উদ্বৃত্ত নয়, দ্বিতীয়ত প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয়কৃত পণ্যের অবশিষ্টাংশ অর্থাৎ অবিক্রীত অংশই হল সমাপনী মজুদ পণ্য ।  প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয়কৃত পণ্যের মূল্যের ভিতরেই সমাপনী মজুদ পণ্যের মূল্য অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ।  তাই প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয় রেওয়ামিলে থাকা অবস্থায়  সমাপনী মজুদ পণ্য রেওয়ামিলে আনলে সমাপনী মজুদ পণ্য দুইবার অন্তুর্ভুক্ত হয়ে যায় যা হিসাববিজ্ঞান রীতিবিরুদ্ধ ।

♣ সমাপনী মজুদ পণ্য কখন রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হয় ?

উত্তর : রেওয়ামিলে যখন সমন্বিত ক্রয় অথবা বিক্রিত পণ্যের ব্যয় অন্তর্ভুক্ত হয়, তখন সমাপনী মজুদ পণ্য রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসে ।  কারণ, সমন্বিত ক্রয় = প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য + ক্রয় – সমাপনী মজুদ পণ্য ।  বিক্রিত পণ্যের ব্যয় = প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য + ক্রয় + ক্রয় সংক্রান্ত খরচ – সমাপনী মজুদ পণ্য ।   সুতরাং রেওয়ামিলে সমন্বিত ক্রয় অথবা বিক্রিত পণ্যের ব্যয়  থাকলে সমাপনী মজুদ পণ্য রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে যাবে তখন, প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয় রেওয়ামিলে যাবে না ।

♣ কখন প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয় রেওয়ামিলে যাবে না ?

উত্তর : রেওয়ামিলে যখন সমন্বিত ক্রয় অথবা বিক্রিত পণ্যের ব্যয় অন্তর্ভুক্ত হয়, তখন  প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয় রেওয়ামিলে যাবে না ।  কারণ, সমন্বিত ক্রয় = প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য + ক্রয় – সমাপনী মজুদ পণ্য ।  বিক্রিত পণ্যের ব্যয় = প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য + ক্রয় + ক্রয় সংক্রান্ত খরচ – সমাপনী মজুদ পণ্য । সুতরাং রেওয়ামিলে সমন্বিত ক্রয় অথবা বিক্রিত পণ্যের ব্যয় অন্তর্ভুক্ত হলে  প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য ও ক্রয় রেওয়ামিলে যাবে না কিন্তু সমাপনী মজুদ পণ্য রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে যাবে ।

♣ ভাড়া, বেতন, কমিশন, সুদ, বাট্টা ইত্যাদি হিসাবের সাথে প্রদত্ত বা প্রাপ্ত কথাটি উল্লেখ না থাকলে এ হিসাবগুলোকে  রেওয়ামিলের কোন দিকে লিখতে হবে ?

উত্তর : এ হিসাবগুলোকে প্রদত্ত ধরে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে লিখতে হবে ।

♣ প্রারম্ভিক মনিহারি মজুদ ও সমাপনী মনিহারি মজুদ রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে ?

উত্তর : মনিহারি মজুদের প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসাতে হবে, সমাপনী মনিহারি মজুদ রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে না ।  কারণ প্রারম্ভিক মনিহারি ও মনিহারি ক্রয়ের অব্যবহৃত অংশই হল সমাপনী মনিহারি ।

♣ প্রারম্ভিক অফিস সাপ্লাইজ ও সমাপনী অফিস সাপ্লাইজ রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে ?

উত্তর : অফিস সাপ্লাইজের ক্ষেত্রে প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসাতে হবে, সমাপনী অফিস সাপ্লাইজ রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে না ।  কারণ প্রারম্ভিক অফিস সাপ্লাইজ ও অফিস সাপ্লাইজ ক্রয়ের অব্যবহৃত অংশই হল সমাপনী অফিস সাপ্লাইজ । উল্লেখ্য ঘড়ি, স্ট্যাপলার, ক্যালকুলেটর, পেপার ওয়েট ইত্যাদি যার মূল্য অপেক্ষাকৃত কম কিন্তু বেশি দিন ব্যবহার করা যায় অর্থাৎ যার ব্যবহার উপযোগিতা দীর্ঘদিন পাওয়া যায় -এ সকল দ্রব্যের ক্রয় সংক্রান্ত খরচ অফিস সাপ্লাইজ হিসাব -এ লিপিবদ্ধ করা হয় ।

♣ হাতে নগদ, ব্যাংক জমা, দেনাদার প্রভৃতি চলতি সম্পদের প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত ও সমাপনী উদ্বৃত্ত -এর মধ্যে কোনটি রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে ?

উত্তর : হাতে নগদ, ব্যাংক জমা, দেনাদার প্রভৃতি চলতি সম্পদের প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে না শুধু সমাপনী উদ্বৃত্ত রেওয়ামিলে ডেবিট দিকে বসবে ।  কারণ এ সকল চলতি সম্পদের সমাপনী উদ্বৃত্তের মধ্যে প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত অন্তর্ভুক্ত থাকে ।

♣ ক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্ত রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে ?

 

উত্তর : ক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্তকে বিবিধ পাওনাদার হিসাব/প্রদেয় হিসাব ধরে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে বসাতে হবে ।

♣ বিক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্ত রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে ?

উত্তর : বিক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্তকে বিবিধ দেনাদার হিসাব/পাপ্য হিসাব ধরে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসাতে হবে ।

♣ সম্ভাব্য দায় ও সম্ভাব্য সম্পদ রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে ?

উত্তর : যেহেতু সম্ভাব্য দায় ও সম্ভাব্য সম্পদ, নিশ্চিত  দায় বা সম্পদ নয় সেহেতু এগুলো রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে না।  তবে এগুলো রেওয়ামিলের নিচে পাদটীকা হিসেবে দেওয়া যেতে পারে ।

♣ হাতে নগদ (০১/০১/২০১৯) ১০,০০০ টাকা, হাতে নগদ (৩১/১২/২০১৯) ২০,০০০ টাকা -কোনটি রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে ?

উত্তর : হাতে নগদ (৩১/১২/২০১৯) ২০,০০০ টাকা রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে অন্তর্ভুক্ত হবে।

♣ মজুদ পণ্য (০১/০১/২০১৯) ৫০,০০০ টাকা, মজুদ পণ্য (৩১/১২/২০১৯) ৬০,০০০ টাকা -কোনটি রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে ?

উত্তর : মজুদ পণ্য (০১/০১/২০১৯) ৫০,০০০ টাকা রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে অন্তর্ভুক্ত হবে।

♣ মজুদ পণ্য (০১/০১/২০১৯) ৫০,০০০ টাকা, মজুদ পণ্য (৩১/১২/২০১৯) ৬০,০০০ টাকা, সমন্বিত ক্রয় ৩০,০০০ টাকা -এক্ষেত্রে কোন হিসাবগুলো রেওয়ামিলে অন্তর্ভুক্ত হবে ?

উত্তর : এক্ষেত্রে মজুদ পণ্য (৩১/১২/২০১৯) ৬০,০০০ টাকা, সমন্বিত ক্রয় ৩০,০০০ টাকা রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে অন্তর্ভুক্ত হবে কিন্তু মজুদ পণ্য (০১/০১/২০১৯) ৫০,০০০ টাকা রেওয়ামিলে আসবেনা, কারণ সমন্বিত ক্রয় = প্রারম্ভিক মজুদ পণ্য+ক্রয় – সমাপনী মজুদ পণ্য ।

♣ আয়কর, জীবনবিমা রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে  ?

উত্তর : আয়কর, জীবনবিমা -এ হিসাবগুলো রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে অন্তর্ভুক্ত হবে ।  আয়কর, জীবনবিমা এগুলো মালিকের ব্যক্তিগত খরচ ।  মালিকানা স্বত্ব নির্ণয়ে -এ হিসাবগুলো উত্তোলন গণ্য করে মালিকের মূলধন থেকে বিয়োগ করা হয় ।

♣ প্রশিক্ষণ ভাতা রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে  ?

উত্তর : প্রশিক্ষণ ভাতা, খরচ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে অন্তর্ভুক্ত হবে ।

♣ দেনা রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে  ?

উত্তর : দেনা -এর অপর নাম হল পাওনাদার, প্রদেয় হিসাব, ক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্ত।  সুতরাং দেনা, পাওনাদার, প্রদেয় হিসাব, ক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্ত_চলতি দায় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে বসবে।

♣ পাওনা রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে  ?

উত্তর : পাওনা -এর অপর নাম হল দেনাদার, প্রাপ্য হিসাব, বিক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্ত।  সুতরাং পাওনা, দেনাদার, প্রাপ্য হিসাব, বিক্রয় খতিয়ানের উদ্বৃত্ত_ চলতি সম্পদ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসবে।

♣ অনুর্পাজিত সেবা আয় রেওয়ামিলের কোন কলামে বসবে  ?

উত্তর : অনুর্পাজিত সেবা আয় (অগ্রিম সেবা আয়), চলতি দায় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট কলামে বসবে ।

♣ মুলধন, গৃহীত ঋণ -এগুলো কী জাতীয় প্রাপ্তি ?

উত্তর : মুলধন, গৃহীত ঋণ -এগুলো মূলধন জাতীয় প্রাপ্তি ।

♣ অনুত্তীর্ণ বিমা রেওয়ামিলের কোন দিকে বসে  ?

উত্তর : অনুত্তীর্ণ বিমা (অগ্রিম বিমা), চলতি সম্পদ হিসেবে রেওয়ামলের ডেবিট দিকে বসে  ।

 

♣ সঞ্চয়পত্র রেওয়ামলের কোন দিকে বসে  ?

উত্তর : সঞ্চয়পত্র, সম্পদ হিসেবে রেওয়ামলের ডেবিট দিকে বসে  ।

♣ ভাড়া, বকেয়া ভাড়া, অগ্রিম ভাড়া -এ হিসাবগুলো রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে  ?

উত্তর : ভাড়া, বেতন, কমিশন, সুদ প্রভৃতি হিসেবের সাথে প্রদত্ত/প্রাপ্ত উল্লেখ না থাকলে, তা প্রদত্ত ধরে, খরচ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে দিতে হবে ।  সুতরাং  ভাড়া (প্রদত্ত ভাড়া), খরচ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসবে ।

বকেয়া ভাড়া অর্থাৎ খরচের বকেয়া, চলতি দায় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে যাবে,

অগ্রিম ভাড়া অর্থাৎ খরচের অগ্রিম, চলতি সম্পদ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে যাবে ।

♣ প্রাপ্ত ভাড়া, প্রাপ্য ভাড়া, অগ্রিম প্রাপ্ত ভাড়া -এ হিসাবগুলো রেওয়ামিলের কোন দিকে বসবে  ?

উত্তর : প্রাপ্ত ভাড়া, আয় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে বসবে,

প্রাপ্য ভাড়া অর্থাৎ আয়ের বকেয়া/অনাদায়ী, চলতি সম্পদ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে যাবে,

অগ্রিম প্রাপ্ত ভাড়া অর্থাৎ আয়ের অগ্রিম, চলতি দায় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে যাবে ।

♣ প্রদেয় বিজ্ঞাপন রেওয়ামিলের কোন দিকে বসে  ?

উত্তর : প্রদেয় বিজ্ঞাপন অর্থাৎ খরচের বকেয়া, চলতি দায় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে যাবে ।

♣ অভিকর রেওয়ামিলের কোন দিকে বসে  ?

উত্তর : অভিকর, খরচ হিসেবে রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসবে ।

♣ বিলম্বিত বিজ্ঞাপন রেওয়ামিলের কোন দিকে বসে  ?

উত্তর : বিলম্বিত বিজ্ঞাপন রেওয়ামিলের ডেবিট দিকে বসবে ।   বিলম্বিত বিজ্ঞাপন একটি অলীক সম্পদ ।

♣ গৃহীত ঋণ, বন্ধকী ঋণ, ব্যাংক ঋণ রেওয়ামিলের কোন দিকে বসে ?

উত্তর : গৃহীত ঋণ, বন্ধকী ঋণ, ব্যাংক ঋণ দীর্ঘমেয়াদি দায় হিসেবে রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকে বসবে ।

♣ অনিশ্চিত হিসাব কী?

উত্তর : রেওয়ামিলের দুই পার্শ্ব না মিললে সাময়িক সময়ের জন্য যে হিসাবের মাধ্যমে দুই পার্শ্ব সমান করা হয় তাকে অনিশ্চিত  হিসাব বলে ।  রেওয়ামিলের ডেবিট দিকের যোগফল যদি ক্রেডিট দিকের যোগফল থেকে বেশি হয় অর্থাৎ ক্রেডিট দিকে কম পড়ে তাহলে ক্রেডিট দিকে অনিশ্চিত হিসাব লেখা হয় ।  রেওয়ামিলের ক্রেডিট দিকের যোগফল যদি ডেবিট দিকের যোগফল থেকে বেশি হয় অর্থাৎ ডেবিট দিকে কম পড়ে তাহলে ডেবিট দিকে অনিশ্চিত হিসাব লেখা হয় ।  পরবর্তী সময়ে ভুল খুজে বের করা সম্ভব হলে সংশোধনী জাবেদার মাধ্যমে অনিশ্চিত হিসাব বন্ধ করা হয় ।

 সুপ্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা “রেওয়ামিল তৈরি সংক্রান্ত কিছু  প্রশ্ন ও -এর  উত্তর”  শীর্ষক এই পোস্ট -এর বাইরেও রেওয়ামিল সংক্রান্ত কোনো প্রশ্ন থাকলে,  কমেন্টস্‌ -এর মাধ্যমে জানালে  আমরা প্রশ্নগুলোর উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো ইনশা-আল্লাহ ।

নবম-দশম শ্রেণির হিসাববিজ্ঞান বিষয়ের কিছু পোস্ট :

রেওয়ামিল প্রস্তুত প্রণালি | সহজ নিয়মে রেওয়ামিল তৈরির উপায় | হিসাববিজ্ঞান, নবম-দশম শ্রেণি

কিছু গুরুত্বপূর্ণ জাবেদা | নবম-দশম শ্রেণি | পর্ব -০১

কিছু গুরুত্বপূর্ণ জাবেদা | নবম-দশম শ্রেণি | পর্ব -০২

উত্তোলন সংক্রান্ত জাবেদা | উত্তোলন হিসাব সংক্রান্ত লেনদেনের জাবেদা দাখিলা প্রদান ।

 

 

About admin

Check Also

কিছু-গুরুত্বপূর্ণ-জাবেদা

কিছু গুরুত্বপূর্ণ জাবেদা | নবম-দশম শ্রেণি | পর্ব -০১

কিছু গুরুত্বপূর্ণ জাবেদা -পর্ব ০১ জাবেদা কাকে বলে ? জাবেদার ইংরেজী শব্দ Journal ।  Journal …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *